খালেদা জিয়া জামিন ফেলেই বিদেশে চিকিৎসা নিতে যাবেন

প্রথম সময়: ডেস্ক নিউজ | সংবাদ টি প্রকাশিত হয়েছে : ০২. অক্টোবর. ২০১৯ | বুধবার

এই প্রতিবেদন শেয়ার করুন

প্রথম সময় ডেস্ক :

জামিন ফেলেই বিএনপি চেয়ারপারসন দেশের বাইরে চিকিৎসা নিতে যাবেন বলে জানিয়েছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, তিনি (খালেদা জিয়া) চিকিৎসার সুযোগ পেলে তো অবশ্যই বিদেশ যাবেন। আজ জামিন পেলে কালই বিদেশ যাবেন। জামিন পেলে তার প্রথম অগ্রাধিকারই হবে চিকিৎসা।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসনের সঙ্গে সাক্ষাতের পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে হারুনুর রশিদ এ কথা বলেন।

হারুনুর রশীদ বলেন, খালেদা জিয়া যেসব অসুস্থতায় আক্রান্ত, সেগুলোর জন্য বিদেশের বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া প্রয়োজন। তার যেসব অসুস্থতা, সেগুলোর বিশেষায়িত চিকিৎসা বাংলাদেশে নেই। আমি সরকারের প্রতি আহ্বান জানাব, সত্যিকার অর্থেই জামিন পাওয়ার নৈতিক অধিকার তার রয়েছে। এই জামিনের অধিকার থেকে তাকে যেন বঞ্চিত করা না হয়।

তিনি আরও বলেন, ওবায়দুল কাদের (আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী) অসুস্থ হলে তাকে সিঙ্গাপুর নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আজ তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে কেন এই চিকিৎসার সুযোগ থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে? এটা সারাদেশের মানুষ জানতে চায়।

মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫টায় খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে যান হারুনুর রশীদ। তার সঙ্গে আরও ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের সংসদ সদস্য উকিল আব্দুস সাত্তার ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য আমিনুল ইসলাম। বিএনপির এই তিন সংসদ সদস্য খালেদা জিয়ার সঙ্গে প্রায় আধা ঘণ্টা কথা বলেন। খালেদা জিয়ার শরীরের খোঁজ-খবর নেন। তার কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন। এরপর সন্ধ্যা ৬টার দিকে তারা বেরিয়ে আসেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বিশাল পরাজয়ের মধ্যেও জয় পান আট জন। এর মধ্যে বিএনপির সংসদ সদস্য ছয় জন। তাদের মধ্যে দলীয় মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়া বাকি সবাই শপথ নেন। পরে মির্জা ফখরুলের ছেড়ে দেওয়া আসনে গোলাম মোহম্মদ সিরাজ বিজয়ী হয়ে সংসদে গেছেন। সংরক্ষিত মহিলা আসনে বিএনপির সংসদ সদস্য হয়েছেন ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা।

শপথ নিয়ে সংসদে যাওয়ার পর এই প্রথম বিএনপির তিন সংসদ সদস্য খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পেলেন।

বিএনপি নেতাদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে বললেন খালেদা জিয়া

প্রথম সময়ের সাথে থাকুন 

এদিকে, বিএনপির তিন সংসদ সদস্য দেখা করতে গেলে খালেদা জিয়া নেতাকর্মীদের নিয়ে তাদের ঐক্যবদ্ধ থাকার নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসন থেকে নির্বাচিত বিএনপির সংসদ সদস্য উকিল আব্দুস সাত্তার।

রাতে উকিল আব্দুস সাত্তার মোবাইল ফোনে সারাবাংলাকে বলেন, ‘আমরা তিন জন ম্যাডামের (খালেদা জিয়া) সঙ্গে দেখা করেছি। ম্যাডামের শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ। বলা যায়, তার অবস্থা একেবারেই অমানবিক। আমরা আধা ঘণ্টার মতো ছিলাম। তারপরও বেশি কিছু বলতে পারিনি। ম্যাডামের শারীরিক অবস্থা দেখার পর কিছু বলার ভাষা ছিল না। আমরা শুধু তার জন্য দোয়া করেছি।’

খালেদা জিয়া কোনো দিক নির্দেশনা দিয়েছেন কি না— এমন প্রশ্নের জবাবে উকিল আব্দুস সাত্তার বলেন, ‘নিজেদের মধ্যে ঐক্য বজায় রাখতে বলেছেন। সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে বলেছেন। আর দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।’

গত বছর ৮ ফ্রেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত হয়ে কারাগারে আছেন বেগম খালেদা জিয়া।  এর পর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলাও তার সাজা হয়েছে। দু’টি মামলায় মোট ১৭ বছরের দণ্ড নিয়ে গত ১৯ মাস ধরে কারাগারে আছেন তিন বারের সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী।

তার দল বার বার চেষ্টা করেও আদালতের মাধ্যমে তাকে মুক্ত করতে পারছে না। রাজপথের কর্মসূচিও দিচ্ছে না তারা। মানববন্ধন, সভা, সমাবেশ, বিক্ষোভ মিছিলেই সীমাবদ্ধ রয়েছে বিএনপি

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩৩ বার




Archives