এখনি বাংলাদেশের মাথায় ৩৭৪ রানের বোঝা

প্রথম সময়: ডেস্ক নিউজ | সংবাদ টি প্রকাশিত হয়েছে : ০৮. সেপ্টেম্বর. ২০১৯ | রবিবার

এই প্রতিবেদন শেয়ার করুন

অনলাই ন্ডেস্ক;

 

 

চট্টগ্রামে একমাত্র টেস্টে কী তাহলে পুঁচকে আফগানিস্তানের বিপক্ষে হারই লেখা হচ্ছে বাংলাদেশের কপালে? ম্যাচের দৃশ্যপট অন্তত সে রকমই। ধীরে ধীরে সাকিবদের জয়ের আশা ফুরিয়েই যেতে বসেছে। তৃতীয় দিন শেষেই বাংলাদেশের ঘাড়ের উপর ৩৭৪ রানের বোঝা চেপে বসেছে। আফগানদের হাতে রয়েছে আরও দুটি উইকেট। বোঝাটা যে আরও ভারি হচ্ছে সেটি স্পষ্টই।

প্রথম ইনিংসে আফগানিস্তানের ৩৪২ রানের জবাবে বাংলাদেশ অলআউট ২০৫ রানে। ১৩৭ রানের লিড নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করা আফগানিস্তান তৃতীয় দিন শেষে ৮ উইকেটে করেছে ২৩৭ রান। ফলে আফগানরা এরই মধ্যে পেয়ে গেছে ৩৭৪ রানের বিশাল। এখনো যেহেতু ২টি উইকেট তাদের হাতে রয়েছে। সুতরাং লিডটা যে আরও কিছুটা বড় হবে, সেটি না বললেও চলে।

কাল চতুর্থ দিনে আফগানিস্তান যদি শেষ ২ উইকেটে আর কোনো রান যোগ করতে নাও পারে, তাহলেও তাদের দুশ্চিন্তা থাকার কথা নয়। কারণ, এরই মধ্যে যে পাহাড় তারা গড়েছে, তা টপকানো বাংলাদেশের জন্য প্রায় অসম্ভবই হবে। কারণ টেস্টের চতুর্থ ইনিংসে পৌনে চারশ রান তাড়া করে জয়ের ঘটনা খুব কমই আছে।

আগের দিনের ৮ উইকেটে ১৯৪ রান নিয়ে দিন শুরু করা বাংলাদেশ আজ আর ১১ রান যোগ করে ২০৫ রানে অলআউট হয়। তখনো এমন আশার বাতিই জ্বলছিল সবার মনে, যদি দ্বিতীয় ইনিংসে সফরকারী আফগানদের ল্পতেই গুঁড়িয়ে দেওয়া যায়, তাহলে সম্ভাবনা ভালো মতোই থাকবে।

সেই আশার পথে অধিনায়ক সাকিব আল হাসান শুরুটা করেছিলেন দুর্দান্ত। দ্বিতীয় ইনিংসের প্রথম ওভারেই তিনি তুলে নেন দুই উইকেট। ৪ রানের মাথায়ই ইহসানউল্লাহ ও প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান রহমত শাহকে ফেরান তিনি। এরপর দলীয় ২৮ রানের মাথায় হাশমতউল্লাহ শহীদকেও ফিরিয়ে দেন নাঈম হাসান।

আফগানদের অল্পতে প্যাকেট করার স্বপ্নটা তখন উজ্জ্বল। কিন্তু আশার বেলুনটা চুপসে যেতেও সময় লাগেনি। তৃতীয় উইকেটে ইব্রাহিম জাদরান ও আসগর আফগান ১০৮ রানের জুটি গড়ে বাংলাদেশের আশার বেলুনটা ফুটো করে দেন।

নাঈম ও তাইজুলের শিকার হয়ে শেষ পর্যন্ত এই দুজনও ফিরে যান প্যাভিলিয়নে। তবে ফেরার আগে অভিষিক্ত ইব্রাহিম জাদরান করেছেন ৮৭ রান, প্রথম ইনিংসে ৯২ করা আসগর আফগান করেছেন কাটায় কাটায় ৫০। এই দুজনের পর মোহাম্মদ নবীকেও ফিরিয়ে দেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

শেষ বিকালে রশিদ খানকে শিকার বানিয়েছেন তাইজুল। সাকিব ফিরিয়েছেন কায়েস আহমেদকে। কিন্তু তাতেও সাকিবদের মুখে হাসি নেই। বরং চোখে-মুখে পরাজয়ের শঙ্কার রেখাটাই স্পষ্ট। রেখাটা মুছে মুখে হাসির ঝিলিক ফোটাতে হলে ব্যাট হাতে দ্বিতীয় ইনিংসে অবিশ্বাস্য কিছুই করতে হবে। তার আগে দ্রুত গুঁড়িয়ে দিতে আফগানদের ইনিংস।

সাকিব-মুশফিকরা পারবেন নিভে যেতে বসা আশার সলতেটা আবার জ্বলজ্বল করে তুলতে। না পারলে কিন্তু ১৯ বছর ধরে টেস্ট খেলা বাংলাদেশের সম্ভ্রব খোয়া যাবে!

সংক্ষিপ্ত স্কোর

আফগানিস্তান : ৩৪২ ও ২৩৭/৮ (ইহসানউল্লাহ ৪, ইব্রাহিম জাদরান ৮৭, রহমত শাহ ০, হাশমতউল্লাহ শহীদ ১২, আসগর আফগান ৫০, আফসার জাজাই ৩৪*, মোহাম্মদ নবী ৪, রশিদ খান ২৪, কায়েস আহমেদ ১৪, ইয়ামিন আহমেদজাই ০*; সাকিব ৫৩/৩, মেহেদী ৩৫/১, তাইজুল ৬৮/২, নাঈম ৬১/২, মুমিনুল ১৩/০, মোসাদ্দেক ৩/০)।

বাংলাদেশ : ২০৫ (সাদমান ০, সৌম্য ১৭, লিটন দাস ৩৩, মুমিনুল ৫২, সাকিব ১১, মুশফিক ০, মাহমুদউল্লাহ ৭, মোসাদ্দেক ৪৮*, মেহেদী ১১, তাইজুল ১৪, নাঈম ৭; ইয়ামিন ২১/১, নবী ৫৬/৩, জহির খান ৪৬/০, রশিদ খান ৫৫/৫, কায়েস

 

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩৯ বার




Archives