ঢাকা উত্তর সিটির অভিবাবক আতিকুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জে সৈয়দ আশরাফের বোন জাকিয়া নূরকে আওয়ামীলীগ দেখতে চায়।

প্রথম সময়: ডেস্ক নিউজ | সংবাদ টি প্রকাশিত হয়েছে : ২৭. জানুয়ারি. ২০১৯ | রবিবার

এই প্রতিবেদন শেয়ার করুন

প্রথম সময়  প্রতিবেদক

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদের উপ-নির্বাচনে তৈরি পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ এর সাবেক সভাপতি ব্যবসায়ী আতিকুল ইসলামকে প্রার্থী করেছে আওয়ামী লীগ। অন্যদিকে কিশোরগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য পদের উপ-নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন পেয়েছেন এই আসনের সদ্যপ্রয়াত এমপি ও আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের ছোট বোন সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি।

শনিবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ড ও স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভায় সর্বস্মতিক্রমে এই দুইজনের প্রার্থিতা চূড়ান্ত করা হয়। আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সভায় বোর্ড সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় দেশের আরও তিনটি পৌরসভার মেয়র এবং ৩০টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়।

বৈঠক শেষে দলের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের আরও জানান, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদের উপ-নির্বাচনে তৈরি পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ’র সাবেক সভাপতি ব্যবসায়ী আতিকুল ইসলামকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

এর আগে ডিএনসিসি’র মেয়র পদে আতিকুল ইসলামসহ ১০ জন এবং কিশোরগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য পদে সৈয়দ আশরাফের বোন সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি ও ছোট ভাই মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলামসহ সাতজন মনোনয়নপ্রত্যাশী আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্রের ফরম সংগ্রহ ও জমা দিয়েছিলেন। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি এই দুইটি পদের উপ-নির্বাচন ছাড়াও ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সম্প্রসারিত ৩৬টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড কাউন্সিলর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

গত বছর ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদে উপ-নির্বাচন ও সম্প্রসারিত অংশের কাউন্সিলর নির্বাচন হাইকোর্টের নির্দেশে স্থগিতের আগেই এ সংক্রান্ত সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিল আওয়ামী লীগ। ওই সময়ই মেয়র পদে আতিকুল ইসলাম আতিককে প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত করে রেখেছিল দলটি। একই সঙ্গে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নবগঠিত ৩৬টি ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর এবং ১২টি সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে দলসমর্থিত প্রার্থীদের তালিকাও সে সময় চূড়ান্ত করা হয়েছিল। তবে নির্বাচন স্থগিত হলে কাউন্সিলর পদের প্রার্থীদের নাম ঘোষণা হয়নি। গত ১৭ জানুয়ারি হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ উঠে গেলে এবং নির্বাচন কমিশন নতুন করে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করলে আওয়ামী লীগ নতুন করে প্রার্থী বাছাই প্রক্রিয়া শুরু করে।

২০১৭ সালের ৩০ নভেম্বর ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের তৎকালীন মেয়র আনিসুল হক মারা গেলে মেয়র পদ শূন্য হয়। পরে মেয়র পদে উপ-নির্বাচনসহ দুই সিটিতে নতুন যুক্ত হওয়া ১৮টি করে মোট ৩৬টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের কাউন্সিলর নির্বাচনের জন্য গত বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি নির্বাচনের দিন নির্ধারণ করে তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। ওই তফসিলের বৈধতা চ্যালঞ্জ করে এবং তফসিলের কার্যকরিতার ওপর স্থগিতাদেশ চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হলে গত বছরের ১৭ জানুয়ারি হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ নির্বাচন ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেন। পরে স্থগিতাদেশের মেয়াদ কয়েকবার বাড়ানো হয়। গত ১৬ জানুয়ারি বিষয়টি রুল শুনানির জন্য সংশ্নিষ্ট বেঞ্চে এলে কিন্তু রিটকারী বা নির্বাচন কমিশনের পক্ষে কেউ আদালতে না থাকায় আদালত রুল খারিজ করে দেন। এর ফলে এই নির্বাচনের পথ উন্মুক্ত হলে নির্বাচন কমিশন নতুন করে তফসিল ঘোষণা করে।

অন্যদিকে ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে কিশোরগঞ্জ-১ আসন থেকে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ব্যাংককে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অংশ নিয়ে বিজয়ী হন। শপথ গ্রহণের আগেই তিনি মারা গেলে আসনটি শূন্য হয়

 

 

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১০১ বার




Archives