জাবি ভিসির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ না করতে পারলে শাস্তি: প্রধানমন্ত্রী

প্রথম সময়: ডেস্ক নিউজ | সংবাদ টি প্রকাশিত হয়েছে : ০৭. নভেম্বর. ২০১৯ | বৃহস্পতিবার

এই প্রতিবেদন শেয়ার করুন

প্রথম সময় অনলাইন ডেস্ক:

বাংলাদেশের চল্মান  আনন্দোলন কে গিরে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ করতে না পারলে অভিযোগকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার পরিবেশ বিনষ্টকারীদের বিরুদ্ধে খোঁজ-খবর রাখতে গণমাধ্যম কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের অনুদানের চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। এসময় গণমাধ্যম মালিক ও সমাজের বিত্তবানদের সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টে অবদান রাখার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের সহায়তার চেক হস্তান্তর উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সারাদেশের ৫৩ জন অসুস্থ, অসচ্ছল ও দুর্ঘটনায় আহত এবং প্রয়াত সাংবাদিক পরিবারের সদস্যদের হাতে কল্যাণ ট্রাস্টের সহায়তার অনুদানের অর্থ তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  এই ফান্ড থেকে এ পর্যন্ত ১৩ কোটি ৫৮ লাখ টাকা সহায়তা পেয়েছেন ১ হাজার ৭১৪ জন সাংবাদিক।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকারের পাশাপাশি গণমাধ্যমের মালিক পক্ষ ও সমাজের বিত্তবানদেরও সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টে অবদান রাখতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা অপরাধী তাদের বিষয়ে গণমাধ্যমে বিস্তারিত তুলে ধরতে হবে। ৭৫ পরবর্তী সময়ে দেশের ইতিহাস বিকৃত করা হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, একাত্তরের অনেক ইতিহাস মুছে ফেলা হয়েছে গণমাধ্যমকে সেই ইতিহাস খুঁজে বের করে আনতে হবে। শেখ হাসিনা বলেন, একটি গোষ্ঠী ৭৫ এরপর বাংলাদেশকে পেছনের দিকে টেনে ধরে রাখার চেষ্টা করেছে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর তা সম্ভব হচ্ছে না, তাই অশুভ শক্তির মনো কষ্ট, এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে আরো সতর্ক হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।

শেখ হাসিনা বলেন, অপরাধীকে অপরাধী হিসেবেই তিনি ব্যবস্থা নিচ্ছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বিরুদ্ধে দুর্নীতির সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকলে সরকার ব্যবস্থা নিবে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ করতে না পারলে অভিযোগকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল এর মাঠে শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় প্রথম আলোর দায় বদ্ধতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি এটিকে অপরাধ উল্লেখ করে বলেন, তারা (প্রথম আলো) এটা কীভাবে করলো?

উল্লেখ্য, দুর্নীতির অভিযোগে জাবি উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের বিরুদ্ধে প্রায় তিন মাস ধরে আন্দোলন চলছে।

এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে আন্দোলনকারী শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

এরপর হল ত্যাগের নির্দেশ দিলেও ছাত্ররা হল ত্যাগ না করে আন্দোলন চালিয়ে যায়। এরপর বুধবার বেলা সাড়ে তিনটার মধ্যে হল না ছাড়লে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানানো হলেও অনেক ছাত্র হল ছাড়েনি। অবশেষে তারা ভিসির বাসভবনের সামনে অবস্থান নেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৪৫ বার




Archives