বাঁচানো গেলো না ফেনীর সেই দগ্ধ নূসরাত জাহান রাফিকে চলে গেলেন তনুর কাছে।

প্রথম সময়: ডেস্ক নিউজ | সংবাদ টি প্রকাশিত হয়েছে : ১০. এপ্রিল. ২০১৯ | বুধবার

এই প্রতিবেদন শেয়ার করুন

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট:

 

 

ঢাকা: পাঁচদিন একটানা মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে অবশেষে চলে গেলেন ফেনীর সেই দগ্ধ মাদরাসা ছাত্রী। বুধবার (১০ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৯টার সময় তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপতালের বার্ন ইউনিটের চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. হোসাইন ইমাম।

অবস্থার অবনতি ফেনীর সেই দগ্ধ ছাত্রীর

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন রাতে আইসিইউ থেকে বেরিয়ে ওই ছাত্রীর বাবা ও ভাইকে ডেকে বুকে জড়িয়ে ধরলে তারা বুঝতে পেরে কাঁন্নায় ভেঙে পড়েন।

পরে বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের সহকারী অধ্যাপক ডা. হোসাইন ইমাম প্রথম সময়কে ওই ছাত্রীর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে জানান রাত সাড়ে ৯টার দিকে তার মৃত্যু হয়েছে

ওই ছাত্রীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। চিকিৎসকরা জানান তার শরীরের ৭৫ শতাংশ পুড়ে গেছে। এছাড়া তার রক্ত ও লাং ইনফেকশনের কারণে কার্ডিও রেসপাইরেটরি ফেইলর হয়ে তার মত্যু হয়েছে।

এর আগে গত ৭ এপ্রিল, রোববার সকালে ওই শিক্ষার্থীর চিকিৎসায় ৯ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়। বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মেয়েটির চিকিৎসা চলে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে তার উন্নত চিকিৎসার জন্য সিংগাপুর নেওয়ার চেষ্টা করা হলেও অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে সিংগাপুরে নেওয়া সম্ভব হবে না বলে জানান চিকিৎসকরা। বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন সিংগাপুরের চিকিৎসকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

উল্লেখ্য, গত ২৭ মার্চ ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা সিরাজ-উদ-দৌলা ওই শিক্ষার্থীকে নিজ কক্ষে ডেকে নিয়ে যৌন হয়রানি করেন বলে অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনায় মেয়েটির মা বাদী হয়ে মামলা করেন। পরে শনিবার (৬ এপ্রিল) ওই শিক্ষার্থী মাদরাসা পরীক্ষা কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে গেলে অধ্যক্ষের অনুসারী কয়েকজন দুর্বৃত্ত হত্যার উদ্দেশ্যে তার শরীরে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৮০ বার




Archives