ফেনীর নুসরাতের কবর জিয়ারত, করিলেন লাইভও করলেন ব্যারিষ্টার সুমন।

প্রথম সময়: ডেস্ক নিউজ | সংবাদ টি প্রকাশিত হয়েছে : ০৮. জুন. ২০১৯ | শনিবার

এই প্রতিবেদন শেয়ার করুন

প্রথম সময় প্রতিবেদক:

 

সমাজের নানা অনিয়ম-অসঙ্গতি ফেসবুক লাইভে তুলে ধরে আলোচিত ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির কবর জিয়ারত ফেনীতে এসেছেন এবং কবর জিয়ারত   করেছেন. শনিবার তিনি সোনাগাজী উপজেলার উত্তর চরচান্দিয়া এলাকায় নুসরাতের গ্রামের বাড়িতে গিয়ে কবর জিয়ারত করেন। এ সময় নুসরাতের বাবা ও দুই ভাইকে সঙ্গে নিয়ে ব্যারিস্টার সুমন ফেসবুক লাইভও করেন।

নুসরাতের খুনিরা কেউ রেহাই পাবে না এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে এই মামলার তদারকি করছেন বলে জানান তিনি।

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের এই প্রসিকিউটর বলেন, ‘নুসরাত হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সোনাগাজীর সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম ছাড়া সব আসামিকে ধরা হয়েছে। তিনিও খুব দ্রুত ধরা পড়বেন বলে আশা করছি। মামলাটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে তদারকি করছেন। এ মামলার কোনো আসামিই রেহাই পাবে না।’

লাইভে তিনি আরও বলেন, ‘বিচারের ব্যবস্থা না করে নুসরাতকে আমরা ভুলব না। এটা তার কবরের সামনে এসে বলে যাচ্ছি। যত বাধাই আসুক না কেন নুসরাত হত্যার আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।’

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ২৭ মার্চ সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে যৌন নিপীড়নের দায়ে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ৬ এপ্রিল ওই মাদ্রাসার ছাদে নিয়ে অধ্যক্ষের সহযোগীরা নুসরাতের শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। ১০ এপ্রিল ঢাকা মেডিকেলে তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় নুসরাতের বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান বাদী হয়ে অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাসহ আটজনের নাম উল্লেখ করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেন। মামলার এজাহারভুক্ত আট আসামিসহ এখন পর্যন্ত ২১ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ও পিবিআই।

পরে ১৫ এপ্রিল নুসরাতকে যৌন হয়রানির ভিডিও ধারণ এবং তা ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সুমন।

প্রথম সময়

 

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৩০ বার




Archives