সিঙ্গাপুর নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ মাদ্রসার ছাত্রীকে। মামলায় ৪ আসামি

প্রথম সময়: ডেস্ক নিউজ | সংবাদ টি প্রকাশিত হয়েছে : ০৮. এপ্রিল. ২০১৯ | সোমবার

এই প্রতিবেদন শেয়ার করুন

 

ফেনী প্রতিনিধি:

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের লাইফ সাপোর্টে থাকা ফেনীর মাদরাসাছাত্রীকে প্রয়োজন হলে সিঙ্গাপুরে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (৮ এপ্রিল) বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেনের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথার বলার সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই নির্দেশ দেন।

 

নুসরাতের ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান বাদী হয়ে সোমবার বিকেলে সোনাগাজী মডেল থানায় অজ্ঞাত ৪ জনকে আসামি করে মামলাটি করেন।

সোনাগাজী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, বিকেলে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে অজ্ঞাত বোরকাপরা মুখোশধারী ৪ জনকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে।

তিনি জানান, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহ পুলিশ ৭ জনকে আটক করেছে। আটকরা হলেন— মাদ্রাসার প্রভাষক আফসার উদ্দিন, মাদ্রাসাছাত্র আরিফুল ইসলাম, মো. মোস্তফা, নুরুল আমিন, আলা উদ্দিন, সাইদুল ইসলাম, জসিম উদ্দিন, আফসার উদ্দিন।

ইতোমধ্যে অভিযুক্ত সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মো. সিরাজ উদদৌলাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

এছাড়া নুসরাতের চিকিৎসা সহযোগিতার জন্য মাদ্রাসা তহবিল থেকে দুই লাখ টাকা অনুদানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

নুসরাত জাহান রাফির অবস্থা সংকটাপন্ন। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়েছে।

গত শনিবার সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসায় আলিম পরীক্ষা দিতে গেলে কৌশলে নুসরাতকে ছাদে ডেকে নিয়ে গিয়ে গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃ্ত্তরা।

এর আগে গত ২৭ মার্চ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মামলা করেন মেয়েটির মা।

মামলা প্রত্যাহারে রাজি না হওয়ায় ছাত্রীটির গায়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ রয়েছে।

এসবি

আরও পড়ুন…
ফেনীর দগ্ধ নুসরাতকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়েছে
যৌন হয়রানির অভিযোগ করায় ছাত্রীকে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা
যৌন হয়রানির অভিযোগ, ছাত্রীর গায়ে আগুন নিয়ে রহস্য
ফেনীর দগ্ধ ছাত্রীর চিকিৎসার খরচ বহন

 

বিস্তারিত আসছে…

 

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৫৭ বার







Archives